Welcome To My Official Blog Site

নতুন নতুন সব আপডেট পেতে আমাদের সাইটের সাথেই থাকুন। আর কোন সমস্যা হলে আমার সাথে ফেসবুকে যোগাযোগ করবেন www.facebook.com/ShaharukhOfficial

Search This Blog

Monday, May 11, 2020

এই ভালোবাসার শেষ কোথায়? ২য় পর্ব ~ মোঃ শাহারুখ হোসেন

এই ভালোবাসার শেষ কোথায়?
মেয়েটা আবার অনলাইনে আসে। অনেকক্ষণ পর ছেলেটা নক করলো...
ছেলেঃ কী ব্যাপার! ব্রেকআপ এর পর ফেসবুকে কী!
মেয়েঃ আবার ঠিক হয়ে গেছে
ছেলেঃ কী! সকালে বললেন আমার জন্য ব্রেকআপ হয়ে গেছে, আর এখন বলছেন ঠিক হয়ে গেছে???
মেয়েঃ হ্যাঁ, ও ফোন করে মাফ চাইলো; আমাকে অনলাইনে আসতে বললো। সেজন্যেই এসেছি না হলে আসতাম না।
ছেলেঃ ওহ ভালো তো প্রেম করতেও সময় লাগে না, ব্রেকআপ করতেও সময় লাগে না; আবার জোড়া লাগতেও সময় লাগে না। হায়রে ভালোবাসা!!
মেয়েঃ হুম।
ছেলেঃ তা কি ভেবে আবার শুরু করলেন?
মেয়েঃ আমি ওরেই বিয়ে করবো।
ছেলেঃ হাহা রিএক্ট দিয়ে বললো, ক্যাম্নে পসিবল?  পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করবেন??
মেয়েঃ নাহ, ছোট বেলায় ভাবতাম। এখনও ভাবি পরিবারের পছন্দ করা পোলা রে যদি বিয়ে করতে হয়, তো উনারে সব জানাবো যে পালিয়ে বিবাহ করার ইচ্ছা ছিলো খুব, তারপর  উনি রাজি থাকলে উনার সাথে ভাইগা যাবো।।।
ছেলেঃ ছেলে দুইটা ইমোজি পাঠিয়ে অফলাইনে চলে যায়।

আবার রাতে তাদের কথা হয়।। ছেলেটা জিজ্ঞাসা করে, কী! প্রেম কেমন চলছে???
মেয়েটা স্ক্রিনশট দেয়, এই দেখেন মাত্র কথা হলো।
ছেলেটা দেখলো তাদের মাঝে ঝগড়া শুরু, ঝগড়ার কারণ মেয়েটা দেরিতে রিপ্লাই দেয় সেজন্য।
এই দেখে সেই ছেলেটা আবার হাসে।। হাহা ইমোজি পাঠায়।
মেয়েটা রাগের ইমোজি দেয়, ছেলেটা বলে রাগ করছেন কেন? সাত দিনের ভালোবাসায় কী সন্দেহ! একে কী ভালোবাসা বলে?
মেয়েটা বললোঃ এতো পিনিক দেন কেন?
ছেলেঃ ভালো লাগে তাই।।
মেয়েঃ রিলেশন টা ও ধরে রাখছে আমি না। একটু পরে এসেই বলবে টুনটুনি কই তুমি
ছেলেঃ টুনটুনি?? ভালোই নাম দিছে টুনটুনি
মেয়েঃ হুম
ছেলেঃ আর একটা সম্পর্ক একজন ধরে বা টিকিয়ে রাখতে পারে না, উভয়ের চেষ্টা ও ভালোবাসা থাকতে হয়।
মেয়েঃ আমি ওরে বিয়া করুম। ও আমার কাছে ৩ বছর সময় চেয়েছে। ৩ বছর পরে বিয়ে করবে।
ছেলেঃ বাহ! ভালো তো। কিন্তু আপনার পরিবার কী ৩ বছর অপেক্ষা করবে?
মেয়েঃ নাহ! আমার ভাইয়া যদি আজকে বিয়ে করে তাহলে কালকে আমার বিয়ে।
ছেলেঃ হাহা রিএক্ট দিয়ে ছেলেটা আবার অফলাইনে চলে যায়।

আবারও ছেলেটা মেয়েটাকে নক দিলো। এই যে ম্যাডাম কী খবর?
মেয়েঃ ভালো না।
ছেলেঃ কেন? কী হয়েছে!
মেয়েঃ বফের লগে ঝগড়া হইছিলো সেই আকারে, সে বললো আর কথা বলবে না, তারপর ভাবলাম আজাইরা ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার অ্যাপস্ রেখে লাভ নেই, তাই সব আনইন্সটল করছিলাম।
ছেলেঃ তারপর!
মেয়েঃ আজ সকালে কল দিয়ে বললেন ফেবুতে আসেন, বললাম সব আনইন্সটল করছি, তারপর এম্বি উঠাই দিয়ে বলে আবার ইন্সটল করো আর ফেবুতে আসেন।
ছেলেঃ হুম
মেয়েঃ হুদাই টাকা নষ্ট কইরা ডাকলো ফেবুতে। আবার হারায় যামু গা।।
ছেলেঃ বুঝলাম। তা এক সপ্তাহের প্রেমে ঝগড়া হয় কী নিয়ে??
মেয়েঃ আমার পোষ্টে কেউ লাভ রিয়েক্ট দিলে জ্বলে❤  রিপ্লাই এ লেট করলে জ্বলে....
ছেলেঃ এতো যার জ্বলে
তার সাথে কি প্রেম চলে??
তাকে কী ভালোবাসা বলে?
মেয়েঃ তা কী বলে?
ছেলেঃ আলগা পিরিত  এটা বলাতেই মেয়েটা রেগে যায় আর  ইমোজি পাঠায়।।
ছেলেটা ভাবে এই বেশি হয়ে গেলো নাকি! তৎক্ষনাৎ মেয়েটা আবার মেসেজ দিলো...
মেয়েঃ একটা সুন্দর নাম দেন☺
ছেলেঃ হুম দিবো, ভেবে দেখি 

কিছুক্ষণ পর মেয়েটার মেসেজ...কল দিবো????
ছেলেটা অবাক... হঠাৎ কল... কাহিনী কী!
ছেলেঃ হ্যাঁ দেন......(চলবে)

~ মোঃ শাহারুখ হোসেন

No comments:

Post a Comment